Slider

Theme images by kelvinjay. Powered by Blogger.

ভিডিও

রাজ্য

দেশ

খেলা

বিনোদন

আন্তর্জাতিক

ফটো গ্যালারি

» » শিলিগুড়িতে ছাত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে রহস্য

উজ্জ্বল ভট্টাচার্য, শিলিগুড়ি, ১৯ শে জুন, ২০১৮ :  এক নাবালিকার অস্বাভাবিক মৃত্ত্যুকে  ঘিরে রহস্য দেখা দিয়েছে সাধারণ শিলিগুড়ির রবিন্দ্রগর এবং শিলিগুড়ি সংলগ্ন  ফাপড়ি এলাকায় ।  মৃত ছাত্রীর পরিবারের দাবি  ঐ নাবালিকাকে খুন করা হয়েছে । এবং  এ ঘটনায় শিলিগুড়ি  ঐ নাবালিকাকে  জোর জবস্তি  করে  ধর্ষণ করার চেষ্টা বা ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে ।  অভিযোগও  উঠেছে  দুই যুবকের বিরুদ্ধে।
এদিন এই অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে  চাঞ্চল্য ছড়ায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় ।  গোটা ঘটনার  নিরপেখ ও  পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করে এই ঘটনার সাথে জড়িতদের  কঠোর শাস্তি দাবি করেছে ওই মৃতার পরিবার।

এ ঘটনার বিষয়ে  স্থানীয় মানুষ, মৃতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকেলে ঐ নাবালিকা বাড়ি থেকে বেরিয়ে তার দুই পরিচিত বন্ধুর সাথে শিলিগুড়ি সংলগ্ন ফাপড়ি যায় ।
মৃতের পরিবারের লোকজন গতকাল থেকে  খোঁজ করে এদিন জানতে পারেন ঐ নাবালিকা ছাত্রী পায়েলি রায় (পরিবর্তিত নাম / আসল নাম নয়) ফাপড়ি এলাকায় এক বাড়িতে অসুস্থ অবস্থায় আছে । সেখানে গিয়ে পায়েলির মা দেখতে পান পায়েলি ঐ এলাকারই এক গৃহস্থ বাড়িতে অসুস্থ অবস্থায় বিছানায় শুয়ে আছে ।
ঐ বাড়ি থেকে  অসুস্থ পায়েলি কে উদ্ধার করে শিলিগুড়ি জেলা  হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা পায়েলি কে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

মৃত নাবালিকার মা কল্পনা রায় এদিন এ বিষয়ে  সাংবাদিকদের বলেন , সোমবার বিকেল  ৫টা  নাগাদ পরিচিত দুই যুবক এসে তাদের মেয়েকে ডেকে নিয়ে যায়।  তার মেয়ে কেন বনবস্তি সংলগ্ন ফাপড়ি এলাকায় গিয়েছিল তা তাদের জানা নেই । তারা খোঁজ করতে থাকেন,  এবং  তাদের কাছে খবর যায়, ওই নাবালিকা ফাপড়ি এলাকায়  অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এরপর একটি বাড়িতে গিয়ে শুয়ে থাকা অবস্থায় বিছানায়  তাদের মেয়েকে দেখতে পান । সেই সঙ্গে তারা মেয়ের শরীরের আঘাতের দাগের চিহ্নিও দেখতে পায় ।   ওই মৃতার মা আরও  বলেন, ওই সময় তার মেয়ে তাকে তার  সাথে জোর- জবরদস্তি ঘটে যাওয়া ঘটনার প্রেক্ষিতে বাঁচিয়ে তোলার আর্জিও জানায়। এরপর নাবালিকাকে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে তাদের মেয়েকে হাসপাতালের  ডাক্তার  ( পায়েলি কে)  মৃত  বলে  জানায়। এই ঘটনার সাথে দুজন যুবক জড়িত বলেও জানান মৃতার মা । তারা পুলিশের কাছেও এ ঘটনার অভিযোগ করেছেন ।
অপরদিকে এদিন ফাপড়ি এলাকার অধিকাংশ স্থানীয় মানুষজন বলেন, সন্ধ্যা হলেই  এই এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরেই অপরাধ মুলক কাজকর্ম দেখা যায় কিন্তু ভয়ে 
কেউ কিছু বলতে সাহস পায় না । প্রায় প্রতিদিনই বেশ কিছু যুবক- যুবতীদের  ছেলে- মেয়েদের  এ সকল এলাকায় ঘুরতে দেখা যায় । মদ- মাতালদেরও দেখতে পাওয়া যায় । পুলিশের নজরদারি আরও বাড়ানো উচিত বলে তাদের মত।
জানা যায়,  ভক্তিনগর থানার পুলিশ  এই ঘটনার তদন্ত করছে এবং ঐ দুই যুবকদের ধরারচেষ্টা করছে  ।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post