Slider

Theme images by kelvinjay. Powered by Blogger.

ভিডিও

রাজ্য

দেশ

খেলা

বিনোদন

আন্তর্জাতিক

ফটো গ্যালারি

» » » তৃণমূলীদের হাতে আক্রান্ত সংবাদ মাধ্যম

ছবি-আক্রান্ত সাংবাদিক সৈকত বিশ্বাস
প্রদীপ সাঁতরা.... -মনোনয়নপত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার জেলা জুড়ে ছিল উত্তেজনা। বৃহস্পতিবার দুপুরে পোলবায় শাসক দলের কর্মীরা কংগ্রেস কর্মীদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেওয়ার   ছবি তুলতে গিয়ে আক্রান্ত সংবাদমাধ্যমের দুই কর্মী। বুধবার সিপিআই(এম) প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা নাদিতে দেওয়ার অভিযোগ ছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার পোলবা  বিডিও অফিসে মনোনয়নপত্র জমা নেওয়ার কাজ যখন চলছিল সেই সময় বিরোধীরা মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসছিল বিডিও অফিসে । শাসক দল তৃণমূলের বেশকিছু দুষ্কৃতী হাতে লাঠি বাঁশ নিয়ে তাদের ওপর চড়াও হয়। সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা সেই ছবি তোলার সময় তৃণমূলের বেশকিছু দুষ্কৃতী তাদের ওপরও আক্রমণ চালায়। অভিযোগ বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই পোলবা বিডিও অফিস চত্বর তৃণমূল কর্মীদের দখলে চলে যায়। বিডিও অফিস ঢোকার রাস্তাগুলি ব্যারিকেড করে রাখে  তৃনমুল কর্মীরা। বিরোধী দলের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেয় তৃণমূল কর্মীরা। প্রতিবাদ জানালে বেশকিছু বিরোধী কংগ্রেস প্রার্থী তৃণমূলীদের হাতে আক্রান্ত হয়। সেই ছবি তুলতে গিয়ে সৈকত বিশ্বাস ও পলাশ মুখোপাধ্যায় দুই বৈদ্যুতিন মাধ্যমের সাংবাদিক তৃণমূলীদের হামলার শিকার হন। ক্যামেরা ভেঙে দেওয়া হয় মোবাইল থেকে চিপ খুলে নেওয়া হয়।
দু'জনকেই অন্যান্য সাংবাদিকরা উদ্ধার করে চুঁচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করান। আক্রান্ত সাংবাদিক সৈকত বিশ্বাস বলেন "সাটিথান পঞ্চায়েতের তৃনমূল পঞ্চায়েত প্রধান মন্তেশ্বর সামন্তর নেতৃত্বে তৃণমূল কর্মীরা আমাদের ওপর আক্রমণ চালায়। পাশেই দাঁড়িয়ে থাকা পোলবা থানার ওসি সমীর সরকার কার্যত নীরব দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন। সাংবাদিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে শুক্রবার জেলাশাসকের দপ্তরে অভিযোগ জানাবেন সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা। হুগলি জেলা পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) সুকেশ জৈন ঘটনার যথাযথ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। তৃণমূলের পক্ষ থেকে হামলা ও মারধরের ঘটনা অস্বীকার করা হয়েছে।



«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post